শহীদ দিবসে জাতীয় পতাকা সঠিক নিয়মে উত্তোলনের নির্দেশ

প্রকাশিত: ৩:৩৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪

সেলিনা আক্তারঃ

শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও পতাকার মাপ নিয়ে অনেকেই অজান্তে ভুল করে থাকেন। বিভিন্ন দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের নিয়ম ও পতাকার নির্দিষ্ট মাপ রয়েছে। ‘জাতীয় পতাকা বিধিমালা’য় জাতীয় পতাকা যথাযথভাবে উত্তোলনের নির্দেশনা রয়েছে। সে অনুযায়ী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে।২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার বিধান রয়েছে। এ দিন ভাষা শহীদদের স্মরণে সারা দেশে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। এ বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ গত ৮ ফেব্রুয়ারি নির্দেশনা দিয়েছে। এ নির্দেশনা অনুসরণ করতে বাংলাদেশ ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উদযাপন উপলক্ষ্যে আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি বুধবার ফাইন্যান্স কোম্পানির ভবনগুলোতে সঠিক নিয়মে, সঠিক রং ও মাপের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখতে হবে। সূর্যোদয়ের সময়ে পতাকা উত্তোলন এবং সূর্যাস্তের সময় পতাকা নামাতে হবে। পতাকা অর্ধনমিত করার ক্ষেত্রে সঠিক নিয়ম অনুসরণ করতে হবে।

বাংলাদেশ সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৪(১) অনুযায়ী, ‘প্রজাতন্ত্রের জাতীয় পতাকা হচ্ছে সবুজ ক্ষেত্রের ওপর স্থাপিত রক্তবর্ণের একটি ভরাট বৃত্ত।’ অন্যদিকে পতাকা বিধিতে বলা হয়েছে, পতাকার রং হবে গাঢ় সবুজ এবং সবুজের ভেতরে একটি লালবৃত্ত থাকবে। জাতীয় পতাকার মাপ হবে ১০ী৬ ইঞ্চি দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের আয়তাকার ক্ষেত্রের গাঢ় সবুজ রঙের মাঝে লাল বৃত্ত। বৃত্তটি দৈর্ঘ্যের এক-পঞ্চমাংশ ব্যাসার্ধ বিশিষ্ট হবে। ভবনের আয়তন অনুযায়ী পতাকা ব্যবহারের তিন ধরনের মাপ হচ্ছে ১০ী৬, ৫ী৩ এবং ২.৫ী১.৫।