বরগুনায় মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে মাদরাসাছাত্রীকে হত্যা

প্রকাশিত: ৭:১৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪

জেলা প্রতিনিধি,বরগুনাঃ 

বরগুনার আমতলী উপজেলায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক মাদরাসা ছাত্রীর হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে তাকে মেরে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের স্বজনরা।নিহত ওই মাদরাসা ছাত্রী হলো, আমতলী উপজেলার সদর ইউনিয়নের পুজাখোলা গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেন খানের মেয়ে তানজিলা (১৩)। সে ওই উপজেলার ইসলামপুর হাসানিয়া দাখিল মাদরাসার শিক্ষার্থী ছিল।

বুধবার (৭ ফেব্রয়ারি) দুপুরের দিকে আমতলী উপজেলার সোনউটা খাল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত মূলহোতা হৃদয় খানকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আমতলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে মাদরাসা ছাত্রী তানজিলা বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। পরে স্বজনরা তার সন্ধান পেতে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করলেও কোথাও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে এ ঘটনার দুইদিন পর বুধবার সকালের দিকে আমতলী উপজেলার পুজাখোলা গ্রামের পাশে সোনাউটার খাল এলাকর পাতাবনে তানজিলার মরদেহ দেখতে পান স্থানীয়রা। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে তানজিলার বাবা মো. তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, আমার মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছিল। পরে প্রতিবেশী হৃদয় আমাদের কাছে ১৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা না পেয়ে আমার মেয়েকে মেরে ফেলা হয়েছে।এ বিষয়ে আমতলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, এ ঘটনার মূলহোতা মুক্তিপণ দাবি করা হৃদয়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জাহিদুল নামে আরও একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।