আমিরাতে ২৯ রমজানেই শুরু ঈদের ছুটি, থাকবে ৭ দিন

প্রকাশিত: ৩:৩০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক রিপোর্টঃ 

এবারের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সরকারি অফিসগুলোতে সাতদিনের ছুটি ঘোষণা করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। তার সঙ্গে শনি-রোববারের সাপ্তাহিক ছুটি যোগ হয়ে মোট ছুটি দাঁড়াচ্ছে নয়দিন। দেশটিতে আগামী সোমবার (৮ এপ্রিল) থেকে শুরু হচ্ছে ঈদের ছুটি।আমিরাতে সরকারি কর্মীদের ছুটি ঈদের চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে না। তবে বেসরকারি কর্মীদের ছুটির সঙ্গে এর সম্পর্ক রয়েছে।এ বছর রোজা ২৯টি নাকি ৩০টি হবে, তার ওপর ভিত্তি করে আমিরাতে বেসরকারি খাতের কর্মীদের ছুটি ছয়দিনও হতে পারে, আবার নয়দিনও হতে পারে।

আমিরাতে ঈদ কবে?
অন্যান্য হিজরি মাসের মতো রমজানও ২৯ নাকি ৩০ দিন স্থায়ী হবে, তা চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল। রমজানের পরের মাস শাওয়ালের প্রথম দিন উদযাপিত হয় মুসলিমদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর।আমিরাতে এ বছর ঈদ হবে ৯ অথবা ১০ এপ্রিল। রমজান যদি ৩০ দিন স্থায়ী হয়, তাহলে ঈদ ১০ এপ্রিল; আর যদি ২৯ দিন হয়, তাহলে ঈদ ৯ এপ্রিল।

ঈদের আগেই ছুটি শুরু?
হ্যাঁ! কারণ, মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে ঈদের ছুটি শুরু হয় ২৯ রমজান থেকে। শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাক বা না যাক, ওইদিন থেকেই আমিরাতে সরকারি-বেসরকারি উভয় খাতের কর্মীদের ছুটি শুরু হওয়ার নিয়ম রয়েছে। গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে এ বছর সেই দিনটি পড়ছে আগামী সোমবার বা ৮ এপ্রিল।

কর্মীরা ৯ দিনের ছুটি পাবেন?
সরকারি খাত: যদি ৮ এপ্রিলের (সোমবার) আগে শনিবার-রোববারের সাপ্তাহিক ছুটি হিসাব করা হয়, তাহলে আমিরাতের সরকারি কর্মীরা মোট নয়দিনের ছুটি পাচ্ছেন। অর্থাৎ ৬ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বিরতিহীন ছুটি উপভোগ করবেন তারা।

বেসরকারি খাত: বেসরকারি খাতের কর্মীরা মোট কতদিন ছুটি কাটাবেন, তা নির্ভর করছে রোজা কতগুলো হবে তার ওপর।৩০ রোজা হলে ৮ এপ্রিল (২৯ রমজান) থেকে ১২ এপ্রিল (শুক্রবার) পর্যন্ত পাঁচদিন ছুটি। এর আগে ও পরে যোগ হবে শনি-রোববারের চারদিন সাপ্তাহিক ছুটি। অর্থাৎ, রমজান ৩০ দিনে গেলে সরকারি কর্মীদের মতো বেসরকারি কর্মীরাও ৬ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত টানা নয়দিন ছুটি কাটাবেন।তবে রমজান যদি ২৯ দিনে শেষ হয়, তাহলে মাত্র ছয়দিন ছুটি পাবেন আমিরাতের বেসরকারি কর্মীরা। সেক্ষেত্রে ৬ ও ৭ এপ্রিল সাপ্তাহিক ছুটি, এরপর ৮ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল ঈদের ছুটি। ১২ এপ্রিল (শুক্রবার) থেকে আবারও কাজে যোগ দেবেন তারা।